About Us

Social blogs and other compositions are being rendered on this blog by highlighting various realities. In each case, there is an attempt to make a glance. Not only entertainment, but also a social obligation, in every essay. The main purpose of the essay is to protect the rights of the neglected, oppressed and exploited people of the society.

I am a journalist in profession. Currently working as journalist of the Birbhum district of Ananda Bazar Patrika group. Along with this there are also addictive addictions. Write short stories, poems, novels and plays. My writing was published in different newspapers. It is itself linked to a literary magazine and newspaper publication. We have also been working with different clubs and voluntary organizations to promote social work and culture.
      Born in 1967 in Lokpara village of Mayureshwar police station of Birbhum district. Graduation in Bangla after reading from the village primary and high school. Dad was a teacher of a local primary school. Start the first career through business.

As well as working as freelancers in the local daily and state-of-the-art daily newspapers. Since 2003, working as District correspondent of Anandabazar newspaper.


এই ব্লগে বাস্তবধর্মী বিভিন্ন ঘটনার উপর আলোকপাত করে পরিবেশিত হচ্ছে সামাজিক গল্প এবং অন্যান্য রচনা। প্রতিটি ক্ষেত্রেই একটি দিগদর্শন দেওয়ার প্রয়াস রয়েছে রচনা গুলিতে। নিছক বিনোদনই নয়, একটি সামাজিক দায়বদ্ধতাও প্রতিটি রচনায় পরিস্ফুট। সমাজের অবহেলিত, নিপীড়িত এবং শোষিত মানুষের অধিকার রক্ষাই রচনাগুলির মূল উদ্দেশ্য।   

আমি পেশায় একজন সাংবাদিক। বর্তমানে আনন্দবাজার পত্রিকা গোষ্ঠীর বীরভূম জেলার সাংবাদিক হিসাবে কর্মরত। পাশাপাশি লেখালেখির নেশাও রয়েছে। ছোট গল্প, কবিতা, উপন্যাস এবং নাটক লিখি। বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় আমার লেখা প্রকাশিত হয়। নিজে একটি সাহিত্য পত্রিকা এবং সংবাদপত্র প্রকাশনার সাথে যুক্ত রয়েছি। এছাড়াও বিভিন্ন ক্লাব এবং স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সঙ্গে বিভিন্ন সামাজিক কাজকর্ম এবং সংস্কৃতি চর্চার কাজ করে চলেছি।  
      বীরভূম জেলার ময়ূরেশ্বর থানার লোকপাড়া গ্রামে ১৯৬৭ সালে জন্ম। গ্রামেরই প্রাইমারি এবং উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল থেকে পঠন পাঠনের পর বাংলায় স্নাতক। বাবা ছিলেন স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক। ব্যবসার মাধ্যমে প্রথম কর্মজীবন শুরু। 
পাশাপাশি একই সঙ্গে স্থানীয় বিভিন্ন সাপ্তাহিক এবং রাজ্যের দৈনিক কাগজে ফ্রিলান্সার হিসাবে কাজ। ২০০৩ সাল থেকে আনন্দবাজার পত্রিকার জেলা সংবাদদাতা হিসাবে কর্মরত। 
                                                                   অর্ঘ্য ঘোষ
                                                                            লোকপাড়া
বীরভূম